ফানটুস্ট

আসেন ব্লগার বন্ধুগণ, একটা সাক্ষাতকার দিয়া যান…

নিজেরে আমি হোমরা-চোমরা না হোক এলেবেলে তো আর ভাবতে পারি না! বয়স আর কতো হইলো? খুব বেশি কি? অথচ এই বয়সে কত কিছু কইরা ফালাইলাম। এই করলাম, সেই করলাম। কিন্তুক এই পর্যন্ত আমার একটা সাক্ষাতকার কেউ কোথাও ছাপানো তো দূরের কথা নিলোই না… 🙁 । আসফোস! এই জাতি একজন উজ্জ্বল প্রতিভাকে মূল্যায়ণ করতে শিখলো না।
—————————-
যাই হোক, ওরা না বুঝলে আর কী করা যায়? জাতিকে তো আর লসে ফেলে রাখা যায় না! এদিকে কিন্তু আমার প্রতিভায় আমি মুগ্ধ। তাই নিজের একটা সাক্ষাতকার নিজেই নিয়া নিলাম।
—————————–
প্রশ্নকর্তা পান্থ বিহোস : উজ্জ্বল প্রতিভা আপনার। আপনি অমুক কাজ করেছেন তমুক কাজ করেছেন। প্রথমেই এ নিয়ে আপনার অভিব্যক্তি জানতে চাই।
উত্তরদাতা পান্থ বিহোস : (মিটি মিটি হেসে) আসলে এ কিছু নয়। বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে কিছু একটা করা সত্যিই দুষ্কর। তবে আমি চেষ্টা করেছি করার। আমাকে অনেকে সহায়তা করেছেন। সময় সুযোগ পেলে এ দেশের অনাথ শিশুদের নিয়ে বিশাল একটা কাজ করার ইচ্ছে আছে।

প্রপাবি : আপনার এই সাফল্যের পেছনে কে বা কারা কাজ করেছে?
উপাবি : এ ব্যাপারে প্রথমেই আমি আমার হবু বউকে ধন্যবাদ দিই। সে না থাকলে আমি এতো কিছু কিছুতেই করতে পারতাম্না। তার জ্বালায় অসহ্য হয়ে নিরালায় এই যেমন নদীর ধারে, বনে বাদাড়ে বসে থাকতে হতো। তখনি ভেবে ভেবে এসব আইডিয়া মাথায় আসতো। আর আমি করে ফেল্তাম।

প্রপাবি : আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা জানলাম- অনাথ শিশুদের জন্য কিছু করা। আপনি যদি এক কোটি টাকা পান এ মুহূর্তে তাহলে কি করবেন?
উপাবি : (ইশারায় রেকর্ডার অফ করতে বললেন, রেকর্ডার অফ হলো) উত্তর দুইটা আছে। একটা লিখবেন- এক কোটি টাকা দিয়ে আমি একটা অনাথাশ্রম করতে চাই। যেখানে পথকলিরা পড়ালেখা করবে, ঘুরবে আনন্দ করবে, বড় হবে।
আর দ্বিতীয় উত্তরটা হচ্ছে মনের কথা। এইটা লেখা যাবে না- এক কোটি টাকা পেলে প্রথমেই একটা ভালো ডেডিকেটেড সার্ভার দেখে একটা হোস্টিং প্যানেল কিনবো। এক বছরের জন্য মোটামুটি ৩০/৩৫ লাখ চলে যাবে। একটা ল্যাপটপ কিনবো- ম্যাকবুক এয়ার, দুনিয়ার সবচেয়ে হালকা ল্যাপটপ। আর ৩০/৪০টা ডোমেইন কিনে ওয়েবসাইট বানানো শুরু করুম।

প্রপাবি : শুনছি আপনি বিয়ের চেষ্টা করছেন?
উপাবি : এটা সম্পূর্ণ স্ক্যান্ডাল। মোটেও না। আমি বিয়ে করবো? কভি নেহি। এ পর্যন্ত কোনো উর্বশী একটা গোলাপ দিলো না… 🙁 আসফোস!!!

প্রপাবি : আপনার প্রিয় খাদ্য কি?
উপাবি : চালের রুটি আর খাশির মাংস।

প্রপাবি : আপনার প্রিয় পোশাক কি?
উপাবি : দূর! কী সব ফালতু প্রশ্ন করেন? অই মিয়া, সাক্ষাতকার যে লইতেছেন কয় টাকা দিবেন? যান ফুটেন, ঘুমানোর সময় হইছে….

————————–
প্রশ্নকর্তা পান্থ বিহোসের সভয়ে পলায়ন….
————————–

আর কে কে সাক্ষাতকার দিতে চান দিয়া যান… আমি ঘুইরা আসি…

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন:

লেখক সম্পর্কে জানুন:

পান্থ বিহোস

ভবিষ্যতে ফুলটাইম লেখক হিসেবে প্রফেশন তৈরি করার ভাবনায় আপাতত ফুলটাইম ভাবুক। আর পার্টটাইম ওয়ার্কার।

মন্তব্য লিখুন