ফিচার

একলা চল ওরে

লিখেছেন: পান্থ বিহোস

সাধারণ দৃষ্টিভঙ্গিতে তারুণ্য মানেই যেন এক ধরনের যৌথ-জীবন। প্রত্যেকেরই যেন প্রেমিক বা প্রেমিকা থাকা চাই! কিন্তু থাকে কি সবার? কিংবা সব সম্পর্কই কি টিকে রয় আজীবন? আর থাকাটা কি অনিবার্য? না, তা নয়। বরং সিঙ্গেল লাইফ বা একলা জীবনের আছে অর্থবহ আনন্দ। আছে উপভোগ করার অনেক চমৎকার উপায়।

যাদের ভেঙে গেছে সুদীর্ঘ কিংবা স্বল্পদৈর্ঘ্য স্বপ্নময় সম্পর্ক, কিংবা যারা কোনোদিনই জড়াননি সম্পর্কে তেমন অর্থাৎ যারা একা এখন তাদের বলছি, কখনও হতাশ হবেন না। ঘুণাক্ষরেও ভাববেন না_ সব শেষ হয়ে গেছে। যদি জীবনকে সত্যিকারভাবে উপভোগ করতে চান, তাহলে নিজের ভাবনাকে অগ্রাধিকার দিন এবং জেনে নিন চমৎকার কিছু উপায়।

বন্ধুত্বের বিশালতা

বন্ধুদের বৃত্তে থাকার চেষ্টা করুন। হতে পারে, আগে আপনার অন্য সম্পর্কের জন্য বন্ধুদের তেমন গুরুত্ব দিতে পারেননি। কিন্তু এখন সময় বন্ধুদের দিকে নতুন করে মনোনিবেশ করার। পুরনো বন্ধুদের খোঁজ নিন এবং নতুন বন্ধুত্বের দিকে হাত বাড়িয়ে দিন। দেখবেন, এই চমৎকার সার্কেলে আপনার জীবন হয়ে উঠেছে আরও সুন্দর।

আহা স্বাধীনতা

নিজের স্বাধীনতা উপভোগ করুন। অহেতুক দ্বিধা কিংবা আপসের বেড়াজাল ছিঁড়ে এবার নিজের স্বাধীনতার দিকে নজর দিন। হতে পারে এতদিন যা সম্ভব হয়নি; এখন পারবেন। কেননা, আপনি এখন একা। সম্পর্ক অবশ্যই একটা ভালো ব্যাপার, কিন্তু সেটা যদি নষ্ট হয়ে যায় তাহলে বুঝতে হবে অবশ্যই একটা কারণ আছে। কেননা প্রতিটি ঘটনার পেছনেই একটা কারণ থাকে। সুতরাং এসব বাদ দিয়ে নিজের ভেতরের নিজেকে স্পর্শ করার চেষ্টা করুন। মুক্ত বিহঙ্গের মতো উড়তে শিখুন।

পরিবার মানে পরম আশ্রয়শালা

এতদিন যার জন্য বাবা-মা, ভাইবোনকে সময় দিতে পারেননি, এবার তো সেই বাধা নেই। সুতরাং পরিবারের প্রতি মনোযোগী হোন। পরিবারের সবাইকে নিয়ে উপভোগ করুন মুভি নাইট। মায়ের সঙ্গে রান্নাঘরে সময় দিন। বাবার কাজের সঙ্গে একাত্ম হওয়ার চেষ্টা করুন। এসব করতে গিয়ে দেখবেন, মনের সব উদ্ভ্রান্ত ভাবনা-চিন্তা শান্ত হয়েছে। তখন ঠাণ্ডা মাথায় পরিকল্পনা করতে পারবেন সুন্দর একটা জীবনের।

মমত্ব : নিজেকে প্রতি

এখনই প্রকৃত সময় নিজেকে জানার, ভালোবাসার। একলা জীবনের তথাকথিত বেদনাবোধ গোল্লায় যাক! আপনি বরং নিজেকে পুনঃমূল্যায়ন করুন আর ভেতরের যোগ্যতাগুলোকে নিজের সামনেই তুলে ধরুন। বিষণ্নতায় না ভুগে ভাবতে শিখুন_ প্রকৃত ভালোবাসার মানুষকে এখনও খুঁজে পাননি। তবে চেষ্টা করতে পারেন সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার কারণ খুঁজে পেতে। নিজেই আপনি নিজের শিক্ষক হয়ে উঠুন। কারণ নিজেকে আপনিই সবচেয়ে বেশি জানেন এবং বোঝেন।

একাকিত্বের কার্যকারণ

হ্যাঁ, ভাবতে শিখুন কেন আপনি একা? হয়তো এই কারণে একা যে, সেই জন আপনার প্রকৃত ভালোবাসার মানুষ ছিল না। যথার্থ মানুষটি হয়তো আপনার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ার জন্য কোথাও না কোথাও অপেক্ষা করছে। তাই পুরনো সম্পর্কটি ভেঙে গেছে, কিংবা এখনও প্রেমই হয়ে ওঠেনি আপনার।
সুতরাং শান্ত হোন এবং সুন্দর আগামীর জন্য অপেক্ষা করুন। দেখবেন, জীবন আগের চেয়ে আরও সুন্দর ও পরিপাটি হয়ে গেছে।

শখের দাম

ব্যাপারটা হয়তো এ রকম ছিলো- আপনি কিছু একটা শখ করে করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু যথাযথ উৎসাহ-উদ্দীপনা পাননি আপনার এক সময়ের কিংবা স্বপ্নের একান্ত মানুষটির কাছ থেকে। তাই পিছিয়ে ছিলেন। কিন্তু এখন তো সেই কারণ নেই। আছে কি? সুতরাং নতুন উদ্দীপনায় লেড়ে পড়ুন নিজের শখের কাজটি করতে। আপনি হয়তো আবিষ্কার করবেন সেটিই আপনার প্রকৃত কারণ। আর নিজের ভেতরে লুকিয়ে থাকা সেই প্রতিভার গুণেই নিজেকে একটা শীর্ষস্থানে নিয়ে যেতে সক্ষম হবেন।

পথের টানে

বিশ্বাস করুন, সে সময় আর নেই- যখন কোথাও বেড়াতে যাওয়অর কথা ছিলো দু’জনের; কিন্তু কোনো না কোনো কারণে বারবার তা পিছিয়ে গেছে। এখন সময় বেরিয়ে পড়ার। যেখানে, যেভাবে এবং যখন আপনার মন চায়। এতে আপনি হবেন তরতাজা ও নিজের কাজের প্রতি মনোযোগী।

—————
প্রথম প্রকাশ : দৈনিক সমকাল, ৩০-০৪-২০১৪

লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন:

_._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._._

টি মন্তব্য | আপনিও মন্তব্য লিখুন...

লেখক সম্পর্কে জানুন:

পান্থ বিহোস

ভবিষ্যতে ফুলটাইম লেখক হিসেবে প্রফেশন তৈরি করার ভাবনায় আপাতত ফুলটাইম ভাবুক। আর পার্টটাইম ওয়ার্কার।